রোববার   ২৯ জানুয়ারি ২০২৩   মাঘ ১৬ ১৪২৯   ০৮ রজব ১৪৪৪

 ফরিদপুর প্রতিদিন
৩১৮

আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে চায়ের দোকান সাজালেন মোহামেডান

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২২  

মাগুরা শহরের পৌর এলাকার পারনান্দুয়ালী গ্রামের বাসিন্দা মো: ইব্রাহীম হোসেন (২৯)। ফুটবলের প্রতি গভীর ভালোবাসা তার। নিয়মিত খেলেন স্থানীয় লীগগুলোতে। স্থানীয়রা তাকে মোহামেডান বলে ডাকে।  

পেশায় তিনি একজন চা-বিক্রেতা। শহরের ইসলামপুর পাড়ায় রয়েছে রয়েছে ইব্রাহীম ওরফে মোহামেডানের এই চা-দোকান।  

ইব্রাহীমের প্রিয় দল আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ শিরোপা ঘরে তুলুক মেসি, এটাই তার প্রত্যাশা।

সেই আশায় বুক বেঁধে নিজের দোকানকে আর্জেন্টিনার পতাকার আদলে সাজিয়েছেন মোহামেডান। দোকানটি এখন মাগুরা শহরে আলোচনার কেন্দ্রে।  

কথা হয় মোহামেডান ওরফে ইব্রাহীম হোসেনের বাবা  লিকাত আলীর সঙ্গে।  

তিনি বলেন, দুই যুগের বেশি সময় ধরে ওই এলাকায় আমার চায়ের দোকান। দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মধ্যে একজন ইব্রাহীম। ইব্রাহীম আমার সঙ্গে চায়ের দোকান সামলায়।

দোকানকে আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে রঙিন করার বিষয়ে ইব্রাহীম বলেন, অল্প বয়স থেকেই চায়ের দোকানে বাবাকে সহায়তা করছি। পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পরে আর স্কুলে যাওয়ার সুযোগ হয়নি তার। তবে কাজে পাশপাশি ফুটবল খেলি নিয়মিত। আমি আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের ভক্ত। তাই কাতার বিশ্বকাপকে ঘিরে পতাকা টানানোর পাশাপাশি পুরো দোকান আকাশি-নীল রঙে রঙিন করেছি।  

মাগুরা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন লীগগুলোতে পরিচিত মুখ মোহামেডান খেলেন অ্যাটকিং মিডফিল্ডার হিসেবে।  

বর্তমানে দ্রব্যমূল্যেও ঊধ্বগতির কারণে দোকানে কাজের চাপ বেড়েছে। দোকান বন্ধ রেখে আগের মতো ফুটবল খেলা সম্ভব হয় না এখন।

ফুটবল বিশ্বকাপকে ঘিরে তার চায়ের দোকানে ভিড় থাকে সব সময়। এ সময়টায় বেচা-বিক্রিও বেড়েছে বলে জানালেন ইব্রাহীম।

মাগুরার ক্রীড়া সংগঠক মো: ইউনুস আলী বলেন, দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে এসেছে মোহামেডান। চা বিক্রির ফাঁকে সে সময় পেলেই মাঠে চলে আসে। ফুটবল প্র্যাকটিস করে। মোহামেডান যদি চেষ্টা করত তাহলে সে অনেক বড় মাপের খেলোয়ার হতো। তাকে যদি দেখভাল করা যায় তাহলে দেশ একজন ভালো খেলোয়াড় পাবে।

 ফরিদপুর প্রতিদিন
 ফরিদপুর প্রতিদিন
এই বিভাগের আরো খবর