সোমবার   ২৪ জুন ২০২৪   আষাঢ় ১১ ১৪৩১   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

 ফরিদপুর প্রতিদিন
সর্বশেষ:
অ্যান্টিভেনমের ঘাটতি না রাখতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নির্দেশ ভাঙ্গা-যশোর রেল লাইন: চার জেলার যোগাযোগে নতুন দিগন্ত সরকারকে ১২৫ কোটি ডলার দিচ্ছে উন্নয়ন সহযোগীরা বাংলাদেশে চালু হবে রু-পে কার্ড, ভারতে টাকা-পে সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নিলেন ওয়াকার-উজ-জামান ঈদযাত্রা: পদ্মাসেতুতে ১৩ দিনে টোল আদায় ৪২ কোটি টাকা খালেদা জিয়ার হৃদযন্ত্রে পেস মেকার বসানোর কাজ চলছে: আইনমন্ত্রী পুলিশের এক অতিরিক্ত আইজিপি ও ৯ ডিআইজিকে বদলি-পদায়ন
৩৭৪

হৃৎপিণ্ডের পরীক্ষা নিয়ে জিতল বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮ জুন ২০২৪  

অবশেষে জয়, বহুল কাঙ্ক্ষিত জয় ধরা দিলো বাংলাদেশ দলের হাতে। এর আগে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুইবার শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হয়ে টাইগাররা জয়ের দেখা পায়নি। দু’দলের সর্বশেষ সিরিজও ২-১ ব্যবধানে গেছে লঙ্কানদের পকেটে। তার ওপর বাংলাদেশ সাম্প্রতিক সময়ে সহযোগী দেশ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সিরিজ হেরে কিছুটা ব্যাকফুটে। আজও লঙ্কানদের বিপক্ষে ম্যাচটা কঠিন করে তোলেন টপ অর্ডাররা। হৃদয়ের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে শেষদিকে ধুঁকতে ধুঁকতে ২ উইকেটে জয় পেল বাংলাদেশ।

ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করা শ্রীলঙ্কাকে দারুণ আক্রমণের মুখে ফেলেন মুস্তাফিজুর রহমান ও রিশাদ হোসেন। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের পাশাপাশি দুজনই তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন। ফলে সর্বসাকুল্যে ৯ উইকেটে মাত্র ১২৪ রানের পুঁজি দাঁড় করায় ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার দল। সেই রানের চাপও শুরুতে নিতে পারেননি টপ অর্ডারে নামা সৌম্য সরকার, তানজিদ হাসান তামিম ও অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

৩০ রানেই তিন উইকেট হারানো বাংলাদেশ পথ খুঁজে পায় তাওহীদ হৃদয়ের কল্যাণে। তিনি যখন ফিরছেন তখন জয় পেতে আর ৫০ বলে ৩৪ রান দরকার টাইগারদের। সেই ম্যাচটাই কিনা কঠিন বানিয়ে ফেলেন সাকিব আল হাসান ও রিশাদ হোসেনরা।

আবারও সেই নুয়ান থুসারা জুজু। বাংলাদেশের মাটিতে হওয়া শ্রীলঙ্কার সর্বশেষ সফরে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে তার ইয়র্কারে নাকানিচুবানি খেয়েছিল স্বাগতিকরা। এই ম্যাচও যেন সেদিকেই মোড় নিচ্ছিল। তবে শেষ সম্বল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সেই ‘পুলসিরাত’ পার করলেন ১ ওভার হাতে রেখে।

বাংলাদেশের হয়ে রান তাড়া করতে নামেন তানজিদ হাসান তামিম ও সৌম্য সরকার। ধনঞ্জয় ডি সিলভার করা প্রথম ওভারেই আউট হন সৌম্য। দুই বল খেলে ডাক মারেন এ ব্যাটার। আরেক ওপেনার তামিম ৩ রানে বোল্ড হন।

লিটন ও শান্ত একটু ধরে খেলার চেষ্টা করেন। তবে পাওয়ার প্লে-র শেষ ওভারে থুসারার দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন শান্ত। টাইগার কাপ্তান করেন ৭ রান। মাত্র ২৮ রানে তিন উইকেট হারিয়ে খাদের কিনারায় চলে যায় বাংলাদেশ।

কঠিন পরিস্থিতিতে দলের হাল ধরেন লিটন ও তাওহীদ হৃদয়। দুজনে গড়েন ৬৩ রানের ম্যাচজয়ী জুটি। ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গাকে দ্বাদশ ওভারে টানা তিন বলে ৩ ছক্কা হাঁকান হৃদয়। তবে পরের বলেই পরাস্ত হন তিনি। আউট হওয়ার আগে করেন ৪০ রান।

হৃদয়ের পরপরই ফেরেন আরেক ব্যাটার লিটন। ৩৬ রানে তিনি আউট হওয়ার পর আসা যাওয়ার মিছিলে যোগ দেন টাইগার ব্যাটাররা। সহজ ম্যাচ চোখের পলকে কঠিনে রূপ নেয়। ক্ষণে ক্ষণে ম্যাচের পাল্লা দুলতে থাকে দুই দলের দিকে।

শেষ পর্যন্ত ১৬ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লংকানদের হয়ে নিয়ান থুসারা চারটি, হাসারাঙ্গা দুটি এবং পাথিরানা ও ধনঞ্জয় একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। শ্রীলংকার হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন পাথুম নিশাঙ্কা ও কুশল মেন্ডিস। ইনিংসের তৃতীর ওভারে আক্রমণে এসেই ১০ রান করা মেন্ডিসকে বোল্ড করেন তাসকিন আহমেদ।

ষষ্ঠ ওভারে আক্রমণে এসেই তিনে নামা কামিন্দু মেন্ডিসকে তানজিম সাকিবের তালুবন্দী করেন মুস্তাফিজুর রহমান। কামিন্দু করেন ৪ রান। একপ্রান্তে আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছিলেন নিশাঙ্কা। মুস্তাফিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন এ ওপেনার। এর আগে ৪৭ রান করেন তিনি।

দলীয় শতকের পর ব্যাটিং ধসের মুখে পড়ে শ্রীলংকা। শেষ ছয় ওভারে দুর্দান্ত বোলিং নৈপুণ্য উপহার দেন টাইগার বোলাররা। এ সময় মাত্র ২৪ রান করতে পারে লংকানরা। যার শুরুটা হয় ধনঞ্জয় ২১ রানে ফেরার মধ্য দিয়ে।

লংকানদের অন্যদের ভেতর চারিথ আসালঙ্কা ১৯ ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ ১৬ রান করেন। বাংলাদেশের হয়ে রিশাদ হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান তিনটি, তাসকিন দুটি ও তানজিম সাকিব একটি করে উইকেট শিকার করেন।

 ফরিদপুর প্রতিদিন
 ফরিদপুর প্রতিদিন
এই বিভাগের আরো খবর