শনিবার   ১৫ আগস্ট ২০২০   শ্রাবণ ৩১ ১৪২৭   ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

 ফরিদপুর প্রতিদিন
৮৫

ফরিদপুরে বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতি

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ২৭ জুলাই ২০২০  

ফরিদপুরে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। রোববার (২৬ জুলাই) রাতে গোয়ালন্দ পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১১৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

অব্যাহতভাবে পানি বৃদ্ধির ফলে ফরিদপুর শহর রক্ষা বাঁধের প্রায় চার কিলোমিটার অংশ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সেখানে বেরিবাঁধের উপর আশ্রয় নেয়া পরিবারগুলোকে নিকটস্থ আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

ডিসি অতুল সরকার জানান, জেলার ৭টি উপজেলায় বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। ৫১৯ গ্রামের ৩৮ হাজার ৩৬৯টি পরিবারের ১ লাখ ৭২ হাজার ৬৬১ জন মানুষ বন্যাকবলিত রয়েছে। এরমধ্যে জেলা সদর, সদরপুর ও চরভদ্রাসন উপজেলায় বেশিরভাগ এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

তিনি আরো জানান, দুর্গতদের জন্য ৩৪টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রয়েছে। করোনাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে যেন সবাই অবস্থান করে সে কারণে বেশি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। 

ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ জানান, পৌরসভার বর্ধিত ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের ভাজনডাঙ্গা কালিতলা মোড় হতে আলিয়াবাদ ইউপির গদাধরডাঙ্গি পর্যন্ত চার কিলোমিটার অংশ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। পদ্মার তীর সংরক্ষণ বাঁধের এই অংশে বিভিন্ন স্থানে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় বাঁধের উপর আশ্রয় নেয়া মানুষদের দ্রুত নিকটস্থ আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। 

তিনি আরো জানান, পানি যেভাবে বাড়ছে তাতে পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। বাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ অংশের কোথাও কোথাও মাটি সরে গেছে। এসব স্থানে বাঁধ ধসের আশঙ্কা রয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বাঁধ সংরক্ষণে। 

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, রোববার জেলায় এক হাজার মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার ও শতাধিক পরিবারে বিতরণ করা হয়েছে। এ পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৩৬৫ মেট্রিক টন চাল, ৫ লাখ টাকা, ২৬শ’ প্যাকেট শুকনো খাবার ও পর্যাপ্ত শিশুখাদ্য বিতরণ করা হয়েছে।

ফরিদপুরের এসপি আলিমুজ্জান জানান, রোববার জেলা সদরের নর্থচ্যানেল ইউপির কবিরপুরের ৩৮ দাগে ত্রাণ সহায়তা হিসেবে চাল, ডাল, তেল, সাবানসহ বিভিন্ন সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। এই মানবিক সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

 ফরিদপুর প্রতিদিন
 ফরিদপুর প্রতিদিন
এই বিভাগের আরো খবর