শনিবার   ০৮ অক্টোবর ২০২২   আশ্বিন ২২ ১৪২৯   ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

 ফরিদপুর প্রতিদিন
সর্বশেষ:
দেশের পাহাড়ী এলাকায় কফি চাষ জনপ্রিয় হচ্ছে শুরু হয়েছে কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল সাজেকে পর্যটকের ধুম, কোনো রুম ফাঁকা নেই ভোক্তা পর্যায়ে এখনই বাড়ছে না বিদ্যুতের দাম দলে যাগ দিয়েছেন সাকিব, নিউজিল্যান্ডে পরিপূর্ণ টিম ফরিদপুরে সরকারি বরাদ্দের ২০০ বস্তা চাল জব্দ আলফাডাঙ্গায় ড্রাগন ও লেবু গাছের সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা!
৪০২

ফরিদপুরে করোনায় মৃত্যু না হলেও শনাক্তের হার ৫১ শতাংশ

প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২২  

ফরিদপুরে করোনা শনাক্তের হার বেড়ে চলছে। গত ২৪ ঘণ্টায় (মঙ্গলবার থেকে বুধবার সকাল আটটা পর্যন্ত) ৩০৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫৫ জনের। শনাক্তের হার ৫১ দশমিক ১৫ শতাংশ। তবে এ সময়ের মধ্যে কেউ মারা যাননি। 

সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজে স্থাপিত পিসিআর ল্যাবে ২৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ১২৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া উপজেলা পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পদ্ধতিতে ৪৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩১ জনের।

পিসিআর ল্যাবের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, করোনা শনাক্তের হার সবচেয়ে বেশি সালথা উপজেলায়। গত ২৪ ঘণ্টায় সালথায় ৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৫৭ দশমিক ১৪। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ফরিদপুর সদর। সদরে করোনা শনাক্তের হার প্রায় ৫২ শতাংশ। এ ছাড়া চরভদ্রাসনে ৫০ শতাংশ, নগরকান্দায় ৪৩ শতাংশ, মধুখালী ও ভাঙ্গায় ৪২ শতাংশ, সদরপুরে ৩০ শতাংশ ও বোয়ালমারীতে রোগীর হার ২৫ শতাংশ। আলফাডাঙ্গা উপজেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় কারও করোনা শনাক্ত হয়নি।

এদিকে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার শহরের স্বাধীনতা চত্বর (কোর্ট পাড় এলাকা), মহাকালী পাঠশালার মোড়, জনতা ব্যাংকের মোড়, নিউমার্কেট এলাকা, ভাঙ্গার রাস্তার মোড় ও নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। দুপুর সোয়া ১২টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত পরিচালিত এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম ইমাম রাজী। ইমাম রাজী বলেন, অভিযানকালে মাস্ক না পরায় ১২ জনকে ১০০ টাকা করে মোট ১ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

ফরিদপুরের সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দীকুর রহমান বলেন, ফরিদপুরে করোনা পরিস্থিতি এতটা অবনতি গত দুই বছরের মধ্যে আর হয়নি। তবে আক্রান্তের হার বাড়লেও মৃত্যুর হার কম। যাঁরা আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের বেশির ভাগ বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাঁদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।

 ফরিদপুর প্রতিদিন
 ফরিদপুর প্রতিদিন
এই বিভাগের আরো খবর