শুক্রবার   ১৮ জুন ২০২১   আষাঢ় ৪ ১৪২৮   ০৮ জ্বিলকদ ১৪৪২

 ফরিদপুর প্রতিদিন
সর্বশেষ:
আগামী জুনে চলবে মেট্রো রেলের উত্তরা-আগারগাঁও অংশ বৈশ্বিক শান্তি সূচকে সাত ধাপ উন্নতি বাংলাদেশের গোয়ালন্দে মৎস্য চাষিদের মাঝে মাছের খাদ্য বিতরণ মহম্মদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এক ব্যতিক্রম স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র আগামী মার্চে শুরু হবে পাতাল রেলের কাজ বার্ড ফ্লুর টিকা তৈরি হচ্ছে ঝিনাইদহে জুলাই থেকে বড় পরিসরে শুরু হবে টিকাদান
৭০

কেমন হবে এবারের ঈদের সাজ

প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২১  

পৃথিবীর অসুখ। করোনা সারাবিশ্বে আতঙ্ক সৃষ্টি করে রেখেছে। দিন দিন বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, থেমে নেই মৃত্যুর মিছিল। এই মন খারাপের দিনে আবারো ফিরে এলো আনন্দের ঈদ। যা এই আতঙ্কের মধ্যে কিছুটা হলেও সবার মুখে হাসি ফোটাবে।  
এবারের ঈদে আর সবার বাড়িতে বেড়াতে যাওয়া হবে না। প্রিয়জনদের ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে হবে দূর থেকেই। ঈদের দিনটি দূর থেকেই ফোনে কণ্ঠ শুনে কিংবা ভিডিও কলে প্রিয় মুখটি দেখে কাটাতে হবে। কারণ মহামারির এই সময়ে বাইরে না বের হওয়াই উত্তম।

তারপরও ঈদের দিনটি, বছরের অন্যান্য দিনের মতো নয়। বাইরে না বের হলেও ঘরের মধ্যেই নিজেকে একটু সাজিয়ে তুলুন। নিজেকে সুন্দর ও পরিপাটি করে রাখলে ভালো থাকবে মনও। ভুলে থাকা যাবে নানা অনিশ্চয়তা, অস্থিরতা। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক এবারের ঈদে কীভাবে সাজাবেন নিজেকে-

ঈদের সকালের সাজ

ঈদের সকাল মানে একটি আনন্দময় দিনের শুরু। শুরুটা যেন স্নিগ্ধ হয় সেই প্রচেষ্টা থাকতে হবে। এমনভাবে সাজুন যেন দেখলেই মন ভালো হয়ে যায়। ঈদে যদি নতুন পোশাক থাকে তবে সেটি পরুন। নইলে পুরনো পোশাকটিই পরতে পারেন। যেটি এক দুইবারের বেশি পরা হয়নি। সকালের পোশাক ছিমছাম হলেই বেশি ভালো লাগে। পরতে পারেন হালকা রঙের কোনো শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজ। মুখে সামান্য ফেস পাউডার বুলিয়ে নিতে পারেন। চোখে একটু কাজলের রেখা। ঠোঁটে হালকা কোনো গ্লস। গলায় আর কানে ছোট্ট পাথরের গয়না মানাবে বেশি। চুল ছেড়ে রাখতে পারেন, আবার বেণি কিংবা খোঁপা করলেও দেখতে খারাপ লাগবে না।

ঈদের দুপুরের সাজ

ঈদের দুপুর অন্যান্য বছরের ঈদের মতো হবে না। অতিথি হয়ে কারও বাড়িতে যাওয়া হবে না কিংবা বাড়িতেও অতিথি আপ্যায়নের তাড়া থাকবে না। তাই নিজেদের জন্যই আয়োজন করুন বিশেষ কোনো খাবারের। তবে সেটি যেন অপচয়ের পর্যায়ে চলে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। পরিবারে যে ক’জন সদস্য রয়েছেন সবাই মিলে বসে একসঙ্গে দুপুরের আয়োজন উপভোগ করুন।

দুপুরেও খানিক সাজিয়ে তুলতে পারেন নিজেকে। রান্না কিংবা বাড়ির অন্যান্য কাজের শেষে গোসল সেরে নিন। এতে অনেকটাই সতেজ অনুভব করবেন। যেহেতু গরমের সময়, তাই ভারী না সাজলেই বেশি ভালো লাগবে। দুপুরের সাজও হালকা থাকুক। তুলে রাখা কোনো গয়না থাকলে পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং করে পরতে পারেন। অনেকদিন যে চুড়িগুলো পরা হয় না, সেগুলো আলগোছে পরে নিতে পারেন। দেখতে সুন্দর লাগবে।

ঈদের রাতের সাজ

উৎসবের রাতের সাজ মানেই জমকালো আর নজরকাড়া। তবে এবছর কেমন সাজবেন তা নির্ভর করবে আপনার উপর। যদি আপনি অনেক বেশি সেজে মন ভালো করতে চান, তবে মন্দ কি! আবার যদি মনে করেন খুব বেশি সাজের দরকার নেই তবে সেটিও হতে পারে। জমকালো সাজ যেন আবার দেখতে জবরজং না লাগে সেদিকে নজর রাখবেন। জমকালো সাজেও পরিপাটি থাকা যায়। এখন হালকা রঙগুলোর গ্রহণযোগ্যতা বেশি। ঠোঁট কিংবা চোখের সাজে হালকা রঙের দিকে নজর দিন। কানে ভারী কোনো দুল পরলে গলা খালি রাখুন। দেখতে সুন্দর লাগবে। রাতের সাজে শাড়ি কিংবা গাউন বেশি ভালো লাগে। তবে গরম আবহাওয়ার বিষয়টি ভুলে গেলে চলবে না। সবার আগে স্বস্তির বিষয়টি মাথায় রাখুন।

 ফরিদপুর প্রতিদিন
 ফরিদপুর প্রতিদিন